Return to previous page

দেশী চ্যাপা শুটকি

বাঙালীর রসনা বিলাসে শুঁটকি মাছের জুড়ি নেই। আর তা যদি হয় দেশী জাতের মাছের শুঁটকি তাহলে তো কথাই চলে না। সাধারণত বিভিন্ন প্রজাতির মাছ রোদে শুকিয়ে শুঁটকি উৎপাদন করা হয়। দেশী জাতের মাছের শুঁটকি সবচেয়ে বেশি উৎপাদিত হয় হাওড়াঞ্চলে।

নেত্রকোনার খালিয়াজুরি, মদন, মোহনগঞ্জ ও কলমাকান্দার বিস্তীর্ণ এলাকা মূলত হাওড়াঞ্চল। এসব উপজেলায় রয়েছে ছোট-বড় অনেক নদী, বিল ও অন্যান্য জলাশয়। আর এসব জলাশয় থেকে প্রতিবছর বিপুল পরিমাণ দেশী জাতের মাছ আহরণ করা হয়। এজন্য নেত্রকোনার বৃহৎ হাওড়াঞ্চলকে বলা হয় ‘মৎস্যভা-ার’। এখান থেকে সারাদেশে যেমন কাঁচা মাছ সরবরাহ করা হয়, তেমনি সরবরাহ করা হয় বিপুল পরিমাণ শুঁটকি মাছও। হাওড়ের শুঁটকির কদর সর্বত্র।

শুঁটকি উৎপাদন করা হয় সাধারণত শীত মৌসুমে। বছরের এই সময়ে হাওড়ের নদী-নালা-বিল-ঝিলের পানি শুকিয়ে যায়। ফলে তখন প্রচুর মাছ পাওয়া যায়।

 

সাধারণ শুঁটকির পাশাপাশি নেত্রকোনা অঞ্চলে ‘চ্যাপা শুঁটকি’ নামে আরও এক ধরনের বিশেষ শুঁটকি উৎপাদন করা হয়। এর প্রস্তুতপ্রণালী একটু ব্যতিক্রম। সবাই তা তৈরি করতে পারেন না। বিশেষ করে জেলে সম্প্রদায়ের কিছু পরিবার বংশ পরম্পরায় চ্যাপা শুঁটকি তৈরি করেন। চ্যাপা শুঁটকি তৈরি হয় পুঁটি মাছ দিয়ে। কাঁচা পুঁটি মাছ কাটার সময় তা থেকে চর্বি বা তেল জাতীয় পদার্থটি আলাদা করে তা উনুনে জাল দিয়ে রাখা হয়।

অন্যদিকে মাছগুলো রোদে শুকানো হয়। ভালভাবে শুকানোর পর ওই মাছগুলোতে তেল মেখে (পুঁটি মাছের তৈরি তেল) মটকায় ভরে কিছুদিন মাটির নিচে চাপা দিয়ে রাখা হয়। এভাবে নির্দিষ্ট কিছুদিন রাখার পর তৈরি হয় চ্যাপা শুঁটকি। অন্যান্য শুঁটকির চেয়ে চ্যাপা শুঁটকির দাম অনেক বেশি। হাওড়াঞ্চলের প্রতিটি ঘরে চ্যাপা শুঁটকি মানেই এক সুস্বাদু খাবার।

অপরিকল্পিত ব্যবস্থাপনার কারণে নদী-নালা, বিল-ঝিলের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। আর তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কমছে মাছের উৎপাদন। এক সময় যে হাওড়াঞ্চলকে ‘মৎস্যভা-ার’ বলা হতোÑ দিনে দিনে সেখানেও মাছের আকাল দেখা দিচ্ছে। হারিয়ে যাচ্ছে অনেক প্রজাতির মাছ। তবু হাওড়াঞ্চল এখনও তার শুঁটকি উৎপাদনের ঐতিহ্য ধরে রেখেছে।

 

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “দেশী চ্যাপা শুটকি 500 Gm”

Your email address will not be published. Required fields are marked